স্বাস্থ্য পরামর্শ

গর্ভাবস্থায় এনার্জি ড্রিংকস পান করা নিরাপদ?

সারাবিশ্বে এনার্জি ড্রিংকসের প্রচুর জনপ্রিয়তা রয়েছে, কারণ এ পানীয়ের উৎপাদনকারীরা অতিরঞ্জিত উপকারিতার কথা বলে বিভিন্ন মাধ্যমে এনার্জি ড্রিংকসের প্রচার চালিয়ে থাকেন। এনার্জি ড্রিংকসের সঙ্গে সম্পৃক্ত উপকারিতা কোম্পানির ওপর ভিত্তি করে ভিন্ন হতে পারে। বলা হয়ে থাকে যে এ পানীয় এক্সারসাইজ বা কাজের পারফরম্যান্স, মেন্টাল ফোকাস বা মনোযোগ ও সতর্কতা বৃদ্ধি করে অথবা শাণিত করে। সুস্থ স্বাভাবিক মানুষেরা এসব ড্রিংকস সীমিত পরিমাণে পান করতে পারেন, কিন্তু গর্ভবতী নারীদের জন্যও কি এনার্জি ড্রিংকস নিরাপদ? এর উত্তর হলো, না।

* বিশেষজ্ঞরা কি বলেন?

গর্ভবতী নারীদের জরায়ুতে একটি গর্ভফুল বিকশিত হয় এবং এটি নাভিরজ্জুর মাধ্যমে গর্ভস্থ বাচ্চাকে খাবার ও অক্সিজেন সরবরাহ করে। একজন গর্ভবতী নারী যেসব খাবার খান তার পুষ্টি গর্ভস্থ বাচ্চার কাছেও পৌঁছে, এমনকি এনার্জি ড্রিংকসের উপাদানও। এনার্জি ড্রিংকসের সকল উপাদান গর্ভস্থ বাচ্চার ওপর কেমন প্রভাব ফেলে তা সম্পর্কে গবেষকরা জানেন না, কারণ বিভিন্ন ধরনের এনার্জি ড্রিংকসে বিভিন্ন উপাদানের ককটেল (মিশ্রণ) রয়েছে- একারণে এ পানীয় টেস্ট করা কঠিন।

কিছু প্রাণীজ গবেষণায় গর্ভবতী ইঁদুরদেরকে নিয়মিত এনার্জি ড্রিংকস খাওয়ানোতে নেতিবাচক সম্পৃক্ততা পাওয়া গেছে। গবেষণাগুলোতে গর্ভবতী ইঁদুরদেরকে প্রতিদিন অল্প পরিমাণে এনার্জি ড্রিংকস খাওয়ানো হয়। দেখা গেল যে, ইঁদুরগুলো যেসব বাচ্চা প্রসব করেছে তাদের অক্সিডেটিভ স্ট্রেস, টিস্যু ইনজুরি ও বিহেভিয়ারাল অল্টারেশন বা আচরণত অস্বাভাবিক পরিবর্তন (যেমন- অ্যানজাইটি) ছিল। গবেষণাগুলোর আলোকে গবেষকরা এ সিদ্ধান্তে আসেন যে, গর্ভাবস্থা ও শিশুকে বুকের দুধ খাওয়ানোর সময়কালে এনার্জি ড্রিংকস পানে নবজাতকের ওপর নেতিবাচক প্রভাব পড়ে এবং এটিকে গুরুতর স্বাস্থ্য সমস্যা বিবেচনা করে চিকিৎসা করতে হবে।

এসব গবেষণার ফলাফল এ বিষয়ে জোর দিচ্ছে যে, গর্ভাবস্থায় এনার্জি ড্রিংকস পান থেকে বিরত থাকা উচিত এবং এটি হলো একটি ইউনিভার্সাল রিকমেন্ডেশন, অর্থাৎ বিশ্বের সকল গর্ভবতী নারীর জন্য এ পরামর্শ প্রযোজ্য। প্রকৃতপক্ষে অনেক এনার্জি ড্রিংকসের লেবেলে এরকম সতর্কবার্তা থাকে: শিশু, ক্যাফেইনের প্রতি সংবেদনশীল লোক, গর্ভবতী নারী ও স্তন্যপান করানো মায়েদের জন্য নিরাপদ নয়।

যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ফিটাস মেডিসিনের ডায়েটিশিয়ান এমিলি মিশেল বলেন, ‘গর্ভাবস্থায় এনার্জি ড্রিংকস সুপারিশকৃত নয়, কারণ এ পানীয়তে উচ্চ মাত্রায় ক্যাফেইন থাকতে পারে। এছাড়া গর্ভাবস্থায় নিরাপদ নয় এমন অন্যান্য উপাদানও থাকতে পারে।’ যুক্তরাষ্ট্রের ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (এফডিএ) এনার্জি ড্রিংকসকে মনিটর করেন না, কারণ এ পানীয় ফুড সাপ্লিমেন্ট ক্যাটাগরিতে পড়ে। এফডিএ ফুড সাপ্লিমেন্টের খোঁজখবর রাখে না এবং এগুলোতে লেবেলে উল্লেখ নেই এমন উপাদানও থাকতে পারে।’

দ্য আমেরিকান অ্যাকাডেমি অব নিউট্রিশন অব ডায়েটিক্সের প্রতিবেদনে উল্লেখ রয়েছে, ‘সেই পানীয়কে এনার্জি ড্রিংকস বলা হয় যেখানে মানব শরীরে স্বল্প সময়ের জন্য শক্তি সরবরাহ করতে কিছু বৈধ উদ্দীপক ও ভিটামিন থাকে। এসব ড্রিংকসে প্রচুর পরিমাণে সুগার, ক্যাফেইন, টাউরিন, কারনিটাইন, ইনোসিটল, জিংকো ও মিল্ক থিসল থাকতে পারে। এগুলোর অধিকাংশই গর্ভাবস্থায় ব্যবহারের জন্য নিরাপদ নাও হতে পারে এবং এনার্জি ড্রিংকসে বিদ্যমান অনেক উপাদান নিয়ে তেমন উল্লেখযোগ্য গবেষণা হয়নি। এনার্জি ড্রিংকসে বিদ্যমান জিনসেং গর্ভাবস্থায় ব্যবহারের জন্য সুপারিশকৃত নয়। একারণে গর্ভবতী নারীদেরকে এনার্জি ড্রিংকস এড়িয়ে যেতে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে।’

* সকল এনার্জি ড্রিংকস কি একই?

না, সকল এনার্জি ড্রিংকস একই নয়। একেক কোম্পানির এনার্জি ড্রিংকসে একেক উপাদান থাকতে পারে। সকল এনার্জি ড্রিংকসে হুবহু একই উপাদান থাকে না। উদাহরণস্বরপ, এক ক্যান রেডবুল এনার্জি ড্রিংকসে ক্যাফেইন, টাউরিন, সুগার ও বি ভিটামিন রয়েছে- অন্যদিকে এক ক্যান মনস্টার এনার্জি ড্রিংকসে জিনসেং, কারনিটাইন, গ্লুকোজ, ক্যাফেইন, গুয়ারানা, ইনোসিটল, গ্লুকুরোনোল্যাকটোন ও ম্যালটোডেক্সট্রিন থাকে। যেহেতু এনার্জি ড্রিংকসে মিশ্রিত উপাদানগুলোর ১০০ শতাংশ সঠিক প্রতিক্রিয়া জানা সম্ভব নয় এবং ফুড অ্যান্ড ড্রাগ অ্যাডমিনিস্ট্রেশনও সাপ্লিমেন্ট বা হার্বাল মেডিসিনের মতো এনার্জি ড্রিংকসের তদারকি করে না, তাই সন্তান সম্ভবা নারী ও গর্ভস্থ বাচ্চার অনাকাঙ্ক্ষিত ঝুঁকি এড়াতে এ পানীয় পান না করাই সবচেয়ে ভালো সিদ্ধান্ত হবে। এছাড়া যেসব নারী বাচ্চাকে বুকের দুধ পান করান, তাদেরও এনার্জি ড্রিংকস থেকে দূরে থাকা উচিত।

তথ্যসূত্র : ভেরি ওয়েল ফ্যামেলি

সূত্র: রাইজিংবিডি

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker