আন্তর্জাতিক

বিরল হাতিটিকে মেরে ফেলা হলো কেবল দাঁতের জন্য

সারা পৃথিবীতে হাতির দাঁতের চোরাকারবার বন্ধ করার কথা বলা হলেও নির্মমভাবে হাতির দাঁত তুলে নেওয়ার ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে। এ কারণে ৪০ বছরের এক বিরল প্রজাতির হাতির মৃত্যু হলো ইন্দোনেশিয়ায়। বিরল ওই হাতি আসলে সুমাত্রান প্রজাতির। আর ওই হাতির দাঁত তুলে নিতে তার মাথা এবং শুঁড় পর্যন্ত কেটে ফেলেছে পাচারকারীরা।

ঘটনাটি ঘটেছে ইন্দোনেশিয়ায়। এমনিতেই এই সুমাত্রান প্রজাতির হাতির সংখ্যা খুবই কমে গেছে। সারাবিশ্বে বিরল প্রজাতির হাতির সংখ্যা এই মুহূর্তে দুই হাজারেরও কম। ঠিক এমনই অবস্থায় আবার এক হাতির মৃত্যু হলো। কারণ সেই একই।

স্থানীয় সংরক্ষণ দপ্তরের একজন কর্মকর্তার কথায়, হাতিটির মাথা কেটে নেওয়া হয়েছে এবং শুঁড় খুঁজে পাওয়া যায় হাতি দেহের থেকে কয়েক মিটার দূরে। স্থানীয় মানুষজন বলছেন, আজ নয়। এক সপ্তাহ আগেই মৃত্যু হয়েছে হাতিটির।

সংরক্ষণ দপ্তরের ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, প্রাথমিকভাবে আমাদের ধারণা, প্রথমে ওই হাতিটিকে শিকার করা হয়। তারপর মাথা কেটে নেওয়া হয়, শুধু দাত আলাদা করে নিতে।

কয়েক মাস আগেই বোতসানায় হাতি শিকার আইন করে দেওয়া হয়। তবে আরেকটি বিষয়ও পশু-পক্ষীদের জীবন সংশয়ে ফেলছে, তা হলো ব্যাপক হারে গাছপালা কেটে ফেলা। যার ফলে মানুষ এবং পশু-প্রাণীদের দ্বন্দ্বের বিষয়টি আরো প্রকট হয়ে যাচ্ছে।

একটি ড্রোনের সাহায্যেও হাতির মৃত্যুর ছবি তোলা হয়েছে। সেই ছবিতে খুবই পরিষ্কারভাবে বোঝা যাচ্ছে যে, একদিকে হাতিটি পড়ে রয়েছে। আরেকদিকে রয়েছে তার শুঁড়, দাঁত ইত্যাদি সব অঙ্গপ্রত্যঙ্গ।

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker