আন্তর্জাতিক

ভারতে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতায় কেউ সরকার গঠন করতে পারবে না!

পাকিস্তানের বালাকোটে বিমান হামলার পর রাজনৈতিকভাবে কিছুটা সুবিধা পাবে বিজেপি। এমনটা মনে করা হয়েছিলো। কিন্তু না সে সুবিধা খুব বেশি নয় বলে জানিয়েছে আইএএনএস।

গতকাল ভারতের লোকসভা নির্বাচনের তফসিল ঘোষিত হয়েছে। ভারতের ৫৪৩ আসনের লোকসভা নির্বাচন ১১ এপ্রিল থেকে। চলবে ৭ দফায় ১৯ মে পর্যন্ত।

এবিপি নিউজ ও সি-ভোটারের দেশের ৫১ হাজার ভোটারের সঙ্গে কথা বলা সমীক্ষায় বলা হয়েছে, এবারের নির্বাচনে বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবেনা। তবে সরকার গড়ার সুযোগ থাকছে তাদের। বালাকোট জঙ্গি হামলার ঘটনায় খুব বেশি সুযোগ পাচ্ছে না বিজেপি। এতে কিছু আসন হয়তো বাড়তে পারে। বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ পেতে পারে ২৬৪টি আসন। সরকার গড়তে যেখানে প্রয়োজন ২৭২টি আসন।

সমীক্ষায় বলা হয়েছে, বিজেপি এককভাবে পেতে পারে ২২০টি আসন। কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউপিএ পেতে পারে ১৪১টি আসন। পাশাপাশি মমতা, চন্দ্রবাবু নাইডু, অখিলেশ যাদব, মায়াবতী, অরবিন্দ কেজরিওয়ালের দলসহ তাদের জোটে থাকা ২৩টি দল পেতে পারে ১৩৮টি আসন। ফলে এ তিনটি জোটের কারও পক্ষে সরকার গড়ার প্রয়োজনীয় আসন না থাকলেও জোট করে সরকার গড়ার সম্ভাবনা বেশি থাকছে এনডিএর।

যদি উত্তর প্রদেশে বিরোধী মহাজোট ভেঙে যায়, তবে এনডিএর আসনসংখ্যা বেড়ে ৩০৭–এ পৌঁছাতে পারে। ইউপিএ পেতে পারে ১৩৯টি আসন। অন্যরা পেতে পারে ৯৭টি আসন। উত্তর প্রদেশে যদি মহাজোট সফল হয়, তবে বিজেপির আসনসংখ্যা কমে দাঁড়াবে ২৯। এ রাজ্যে রয়েছে লোকসভার ৮০টি আসন।

ভারতের জনসংখ্যার দিক থেকে দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজ্য মহারাষ্ট্রের মারাঠি ভাষার জি-গ্রুপের সংবাদ চ্যানেল ‘জি-২৪ তাস’ তাদের সমীক্ষায় বলেছে, বিজেপির নেতৃত্বাধীন জাতীয় গণতান্ত্রিক জোট বা এনডিএ এবার এককভাবে সরকার গড়তে পারছে না। তবে তারা এককভাবে আসনসংখ্যায় শীর্ষে থাকবে। লোকসভায় বিজেপির নেতৃত্বাধীন এনডিএ জোট পেতে পারে ২৬৪টি আসন। কংগ্রেসের নেতৃত্বাধীন ইউপিএ বা সংযুক্ত প্রগতিশীল জোট এবার পেতে পারে ১৬৫টি আসন। মমতার ইউনাইটেড ইন্ডিয়া এবং তাদের শরিক বহুজন সমাজপার্টি, সমাজবাদী পার্টি, তৃণমূল কংগ্রেস, আম আদমি পার্টি, তেলেগু দেশমসহ ২৩ জোট সঙ্গী পেতে পারে ১১৪টি আসন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker