বাংলাদেশ

চসিক নির্বাচন: জয়-পরাজয়ে ফ্যাক্টর হবে ৯ লাখ নারী ভোটার

চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশন (চসিক) নির্বাচনে এবার মোট ভোটার ১৯ লাখ দুই হাজার ৮১১ জন। এর মধ্যে পুরুষ ৯ লাখ ৭৮ হাজার ৬০ জন এবং নারী ভোটার ৯ লাখ ২৪ হাজার ৭৫১ জন। মোট ভোটারের প্রায় ৪৮ শতাংশ নারী। তাই নারী ভোটারদের টার্গেট করে এতদিন গণসংযোগ চালিয়েছেন প্রার্থীরাও। মেয়র ও কাউন্সিলর পদের প্রার্থীদের জয়-পরাজয়ে ভূমিকা রাখবেন তারা।

বুধবার চসিক নির্বাচনে ভোট গ্রহণ। নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ৭ জন এবং সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডে কাউন্সিলর পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন ২২৯ জন।

ভোট দিয়ে নির্বিঘ্নে ঘরে ফেরার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, নির্বাচনকে ঘিরে পুরো নির্বাচনী এলাকাকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে ফেলা হয়েছে। ভোটারদের আশ্বস্ত করতে চাই, ভোটকেন্দ্রে এসে নির্বিঘ্নে ভোট দিতে পারবেন।

নগরীর ৭নং পশ্চিম ষোলো শহরের বাসিন্দা ময়না বেগম। গৃহপরিচারিকার কাজ করা এই নারী সমকালকে বলেন, ‘ভোট একটা আমানত। তাই ভোট দিতে যাব। আর যারা নির্বাচনে দাঁড়িয়েছে তারা এসেছেন। সামনের দিনে পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন। তা ছাড়া আমাদের সাহায্য না করলেও এলাকায় উন্নয়ন হয়েছে। আগে যেসব রাস্তাঘাটে চলা যেত না, সেসব রাস্তাঘাট এখন ভালো হয়েছে। ভাঙাচোরা ড্রেনগুলো ঠিক হয়েছে। যারা নির্বাচনে জিতবেন, তারা যেন এভাবে কাজ করে যান।’

নগরীর আগ্রাবাদ এলাকায় এক নারী ভোটারের সঙ্গে কথা বলে জানা গেল ভোট দিতে যাওয়ার ব্যাপারে তার আগ্রহ রয়েছে। ১৬নং চকবাজার ওয়ার্ডের ভোটার এই নারী একজন স্কুলশিক্ষক। তবে নাম প্রকাশ না করার অনুরোধ জানিয়ে তিনি বলেন, ‘সচেতন নাগরিক হিসেবে সবসময় মানুষ ভোট দিতে চাইবে। কারণ নাগরিক যদি ভোটের মাধ্যমে কাউকে নির্বাচিত করেন তাহলে সেই জনপ্রতিনিধির ওপর নাগরিকের কর্তৃত্ব থাকে। একটা জবাবদিহিতার জায়গা তৈরি হয়। এ ক্ষেত্রে ভোট দেওয়ার বিকল্প নেই। তাই আমি ভোট দিতে যাব। তবে একটু শঙ্কা কাজ করছে। কারণ সম্প্রতি নির্বাচন মানেই যেন মারামারি, হানাহনি। তবে এখনও এই নির্বাচনে পরিবেশ ভালো বলেই মনে হচ্ছে।’

আরেক ভোটার হাসিনা বেগম। গার্মেন্টসে কাজ করেন। নির্বাচন উপলক্ষে গার্মেন্টসে ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। তাই তিনি ভোট দিতে যাবেন বলে জানালেন। তিনি বলেন, ‘ভোট নাগরিকের একটা অধিকার, আবার ক্ষমতাও। ভোট এলে ভোটারের ক্ষমতা প্রয়োগ করে জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করা উচিত। তাই ভোট দিতে যাব।’

সূত্রঃ সমকাল

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker