আন্তর্জাতিক

২৫ বছর বয়সে বিয়ে না করলে শাস্তি পেতে হয় যে দেশে

বিয়ের জন্য সব দেশেই নির্ধারিত বয়স রয়েছে। তবে ডেনমার্কের একটি শহরেও বিয়ে নিয়ে একটি বিচিত্র নিয়ম রয়েছে। সেটা হচ্ছে বয়স ২৫ হওয়ার পরও বিয়ে না করলে জন্মদিনে সারা গায়ে দারুচিনির গুঁড়ো ছড়িয়ে দেওয়া। আর এটা করার উদ্দেশ্য বিয়ের কথা মনে করিয়ে দেওয়া।

কথিত আছে, ডেনমার্কে এমন প্রথার শুরুটা হয়েছিল কয়েকশ’ বছর আগে। মসলা বিক্রির জন্য যেসব বিক্রেতা এক জায়গা থেকে আরেক জায়গায় ঘুরে বেড়াতেন তাদের পক্ষে ঘর-সংসার করা প্রায় অসম্ভব হয়ে উঠত। ব্যবসার কারণে এক জায়গায় তারা স্থায়ী হতে পারতেন না। এ কারণে বেশিরভাগ মসলা বিক্রেতা জীবনসঙ্গীও খুঁজে পেতেন না। এমন অবিবাহিত সেলসম্যানদের ‘পেপার ডুডস’ বলা হত। আর অবিবাহিত নারীদের ‘পেপার মেইডেন’ বলা হত।

‘পেপার ডুডস’ বা ‘পেপার মেইডেন’দের পথে যাতে ডেনমার্কের তরুণ প্রজন্ম না হাঁটেন, সে জন্য এই প্রথা এখনও মানা হয়। যেসব অবিবাহিতের বয়স ২৫ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে, অথচ বিয়ে করেননি তাদের গায়ে দারুচিনির গুঁড়া মাখানো হয়।

আর যদি অবিবাহিতদের বয়স ৩০ পার করে তাহলে শুধু দারুচিনি নয়, মরিচের গুঁড়াও মাখানো হয় তাদের শরীরে। কখনও কখনও সঙ্গে ডিমও মেশানো হয়। এই রীতির মাধ্যমে অবিবাহিতকে মনে করিয়ে দেওয়া হয় যে তার বিয়ের বয়স হয়েছে। আর দেরি না করে বিয়ে করে ফেলা উচিত তার।

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker