স্বাস্থ্য পরামর্শ

কানের ভেতর পোকা ঢুকলে যা করবেন

ঘুমানোর সময় দুর্ভাগ্যবশত কানের ভেতর তেলাপোকার বাচ্চা, পিঁপড়া, মশা ইত্যাদি ঢুকে যাওয়ার মতো ঘটনা ঘটতে পারে। এছাড়া বাইরে থাকাকালীল সময়েও মশা, মাছি, গুবরে পোকা প্রভৃতি কানের মধ্যে ঢুকতে পারে। বিশেষ করে শিশুদের ক্ষেত্রে এ ধরনের ঘটনা বেশি ঘটে থাকে।

কানে হঠাৎ কোনো ধরনের পোকা-মাকড় ঢুকে পড়া ভীতিকর ও কষ্টের। সঙ্গে সঙ্গে যদি কানের ভেতর থেকে পোকা বের করা যায় তাহলে দুশ্চিন্তার কিছু নেই। কিন্তু দেরী হলে বড় ধরনের অস্বস্তিকর ঘটনার মুখোমুখি হওয়া লাগতে পারে। সাম্প্রতিক এ ধরনের একটি ঘটনা জেনে নিন।

হ্যাঁ! ঘুমন্ত অবস্থায় তার কানের মধ্যে তেলাপোকা ঢুকে গিয়েছিল। তার কানের মধ্য থেকে তেলাপোকাটি বের করার জন্য চিকিৎসক প্রথমে পোকাটিকে লেডোকাইন নামক একটি ওষুধ দিয়ে মেরে ফেলেন এবং পরবর্তীতে পোকাটিকে সেখান থেকে বের করে আনেন।

কিন্তু তার কিছুদিন পার হয়ে যাওয়ার পরেও কেটি তার কানের মধ্যে ব্যথা অনুভব করতে থাকেন এবং পাশাপাশি তার শুনতেও বেশ সমস্যা হচ্ছিল। এভাবে প্রায় নয়দিন অতিবাহিত হয়ে যাওয়ার পরে যখন তিনি আবার চিকিৎসকের কাছে যান তখন জানতে পারেন, তেলাপোকাটির দেহের কিছু অবশিষ্ট অংশ এখনো তার কানের মধ্যে রয়ে গেছে। পূর্ববর্তী চিকিৎসকরা পোকাটিকে পুরোপুরি বের করতে সক্ষম হননি।

মশা-মাছি, তেলাপোকা, পিঁপড়া বা অন্য কোনো জীব ঢুকলে কানের ছিদ্রের সামনে উজ্জ্বল আলোর টর্চলাইট ধরুন। এতে জীবন্ত পোকামাকড় আলোর প্রতি সংবেদনশীল হওয়ায় বের হয়ে আসতে পারে। এতে কাজ না হলে অলিভ ওয়েল বা নারিকেল তেলের কয়েক ফোঁটা ধীরে ধীরে কানের মধ্যে দিতে পারেন। এতে জীবন্ত ওই পোকামাকড় কানের ভেতরেই মরে যাবে, ফলে ব্যথা বা অস্বস্তিও কমে যাবে। তারপর সাবধানতার সঙ্গে কান থেকে সেটি বের করতে হবে। এরপরও চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে। কে জানে, কেটি’র সঙ্গে ঘটে যাওয়ার ঘটনাটির মতো পোকার অংশ বিশেষ কানের মধ্যে থেকেও যেতে পারে!

পোকামাকড় কান থেকে বের করতে বেশি খোঁচাখুঁচি করতে যাবেন না, তাতে নতুন বিপদ দেখা দিতে পারে। খোঁচাখুঁচির ফলে কানের পর্দা ছিদ্র হয়ে যেতে পারে। তাই এ কাজের জন্য নাক-কান-গলা চিকিৎসকের কাছে যাওয়াটাই সবচেয়ে নিরাপদ।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker