বাংলাদেশরাজনীতি

জনগণকে ঘর ছেড়ে রাজপথে নেমে আসার আহ্বান বামজোটের

২৫ তারিখ সকাল ৬টা থেকে ১২টা হরতাল

বাম গণতান্ত্রিক জোটের ডাকা হরতালের সময় জনগণকে যার যার অবস্থান থেকে কাজ বন্ধ রেখে রাজপথে নেমে বিক্ষোভে শামিল হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন জোটের কেন্দ্রীয় সমন্বয়ক এবং বাংলাদেশের কমিউনিস্ট পার্টির (সিপিবি) কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক রুহিন হোসেন প্রিন্স।

সোমবার (২২ আগস্ট) বিকেলে চট্টগ্রাম নগরীর সিনেমা প্যালেস মোড়ে হরতালের সমর্থনে জেলা বাম গণতান্ত্রিক জোট আয়োজিত ট্রাক মিছিল পূর্ব সমাবেশে রুহিন হোসেন প্রিন্স এ আহ্বান জানান।

রুহিন হোসেন প্রিন্স বলেন, ‘আমরা বাম গণতান্ত্রিক জোট ২৫ আগস্ট (বৃহস্পতিবার) সকাল ৬টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত হরতাল আহ্বান করেছি। বামপন্থীরা আহ্বান করেছে বলে এটা শুধু বামপন্থীদের হরতাল নয়, এটা জান বাঁচানোর দাবিতে জনগণের হরতাল। জনগণকে বলেত চাই, আসুন দুঃশাসন রুখে দাঁড়াই। হা-হুতাশ করে লাভ নাই। সরকার আমাদের হা-হুতাশকে পাত্তা দেবে না, বরং দুর্বলতা মনে করবে। আপনাদের গর্জে উঠতে হবে। ২৫ তারিখ সকাল ৬টা থেকে ১২টা পর্যন্ত যে যেখানে আছেন সেখানে কাজ বন্ধ রেখে রাস্তায় এসে বিক্ষোভ করুন। ঐক্যবদ্ধভাবে এই সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান।’

তিনি বলেন, ‘সরকার উপহাস করে আমাদের বলে- আপানারা এত কথা বলেন, জনগণ তো আপনাদের সাথে নাই। আমরা যে কথাগুলো বলছি এগুলো কি মিথ্যা? জনগণ হয়ত সবসময় মিছিল-মিটিংয়ে আসতে পারে না। কারণ এই হাসিনা সরকার জনগণের ওপর জরুরি অবস্থা চাপিয়ে দিয়েছে। তাদের নুন আনতে পান্তা ফুরায় অবস্থা, মিছিল-মিটিং করবে কখন? জনগণের প্রতি আহ্বান, ২৫ আগস্ট সবাই ঘর ছেড়ে রাজপথে নেমে আসুন। এই লুটেরা সরকারকে হঠাতে হবে। দুঃশাসনের অবসান ঘটাতে হবে। দেশকে মুক্তিযুদ্ধের ধারায় ফিরিয়ে নিতে হবে।’

রুহিন হোসেন প্রিন্স আরও বলেন, ‘দেশের মানুষের আজ দূরবস্থা। কিন্তু যারা ক্ষমতায় আছে তারা এই অবস্থার কথা স্বীকার করে না। বরং নানা বক্তব্য বিবৃতির মাধ্যমে সরকারের লোকজন জনগণের সঙ্গে ঠাট্টা-মশকরা করছে। বাংলাদেশের কোনো মানুষ নাকি স্যান্ডেল ছাড়া চলে না, কোনো মানুষ না খেয়ে মারা যায়নি- এসব কথা বলে। একসময় ওনারা বিদ্যুতের গল্প শুনিয়েছেন। বিএনপির আমলে খাম্বা পাওয়া যেত, বিদ্যুৎ পাওয়া যেত না। আর বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের আমলে বিদ্যুৎকেন্দ্র পাওয়া যাচ্ছে, বিদ্যুৎ পাওয়া যাচ্ছে না।’

তিনি বলেন, সরকার সারের দাম বাড়িয়ে দিল, তেলের দাম বাড়িয়ে দিল। জনগণের প্রতি দায়িত্ব থাকলে কোনো সরকার এরকম কোনো কাজ করতে পারে না। আসলে সরকারের তেলা মাথা হয়ে গেছে, টাকাপয়সা নাই। জনগণের পকেট কেটে পাল্লা ভারি করছে। সামরিক-বেসামরিক আমলা পুষছে। আমলার গাড়ির তেলের টাকা তো কমায়নি, পুলিশের খরচ কমায়নি, আমলার খরচ কমায়নি। লাথি মারল জনগণের পিঠে।

চট্টগ্রামের বাম গণতান্ত্রিক জোটের সমন্বয়ক ও বাসদ (মার্কসবাদী) নেতা সফি উদ্দিন কবির আবিদের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন, সিপিবি চট্টগ্রাম জেলার সভাপতি অশোক সাহা, সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর ও সহকারী সাধারণ সম্পাদক নুরুচ্ছাফা ভূঁইয়া, বাসদ নেতা মাহিন উদ্দিন এবং বাসদ (মার্কসবাদী) চট্টগ্রাম জেলার সদস্য জাহেদুন্নবী কনক প্রমূখ।

সমাবেশ শেষে জোটের নেতাকর্মীরা ট্রাক মিছিল সহকারে নগরীর লালদিঘীর পাড়, আন্দরকিল্লা, জামালখান, চকবাজারসহ দশটি পয়েন্টে হরতালের প্রচারপত্র বিলি করেন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker