আন্তর্জাতিক

তুরস্কের প্রথম কমিউনিস্ট মেয়র : ফাতিহ্‌ ম্যাকোগলু

‘কমিউনিস্ট প্রেসিডেন্ট’ নামে পরিচিত এই নেতা জেলা জুড়ে মিউনিসিপ্যালিটির জমিতে ছোলা, শিম এবং আলু চাষের ব্যবস্থা করেন। সেখান থেকে আসা আয়ের পুরোটাই তিনি ভাগ করে দেন নিম্ন আয়ের পরিবার এবং শিক্ষার্থীদের বৃত্তিখাতে।

গত রবিবার অনুষ্ঠিত তুরস্কের স্থানীয় পর্যায়ের নির্বাচনে টানসেলি প্রদেশ থেকে জয়লাভ করেছেন ফাতিহ্‌ মেহমেত ম্যাকোগলু। শতকরা ৩২ দশমিক ৭ শতাংশ ভোট পেয়ে তিনিই দেশটির কোনও অঞ্চলের প্রথম বামপন্থী মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।

গত ৩১ মার্চ অনুষ্ঠিত নির্বাচনে তুরস্কের নাগরিকরা তাদের আঞ্চলিক মেয়র এবং মিউনিসিপ্যাল কাউন্সিলের সদস্যদের বেছে নেন।

ভোটের প্রাথমিক ফলাফল অনুযায়ী, তুর্কি কমিউনিস্ট পার্টি (টিকেপি) মনোনীত প্রার্থী ম্যাকোগলু প্রধান প্রতিদ্বন্দ্বী দুই রাজনৈতিক দল সিএইচপি এবং এইচডিপির প্রার্থীদের হারিয়ে সেখানকার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন বলে জানিয়েছে তুরস্কের একাধিক সংবাদ মাধ্যম।

বেসরকারিভাবে ঘোষিত ফল থেকে জানা গেছে, ফাতিহ্‌ ম্যাকোগলু পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৮৭ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী এইচডিপি প্রার্থী নুরসাত ইয়েসিল পেয়েছেন ৫ হাজার ১৬৯ ভোট।

প্রসঙ্গত, টানসেলি তুরস্কের পূর্বাঞ্চলীয় এলাকা। জনসংখ্যা প্রায় ৯০ হাজার, যাদের অধিকাংশই কুর্দি। সাম্প্রতিক সময়ে দেশটির রাজনীতিতে এটিই ছিল কমিউনিস্ট বিরোধী এইচডিপির শেষ শক্তিশালী ঘাঁটি। ২০১৪ সালে অনুষ্ঠিত বিগত মেয়র নির্বাচনে শতকরা ৪২ শতাংশ ভোট পেয়ে জিতেছিল দলটি। সে বার কমিউনিস্ট পার্টি তেমন উল্লেখযোগ্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা গড়ে তুলতে না পারলেও এই বছরের নির্বাচনে ব্যাপক জনপ্রিয়তা নিয়ে জয় পায় ফাতিহ্‌ মেহমেতের দল।

তবে ম্যাকোগলুর এই জনপ্রিয়তা রাতারাতি আসেনি। তুরস্কের পূর্বাঞ্চলের ছোট্ট শহর ওভাচিক এর মেয়র হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন তিনি। সেখানকার জনগণের আস্থা অর্জন করেই তিনি পা বাড়ান টানসেলির দিকে।

১৯৬৮ সালের ২০ ডিসেম্বর ওভাচিক শহরে জন্ম নেন ফাতিহ্‌ মেহমেত ম্যাকোগলু। ১৯৮৯ সালে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ে বজকির শহরে কাজের মাধ্যমে পেশাদার জীবনের শুরু করেন তিনি। পেশাদার জীবনে বিভিন্ন শহরে ঘুরে ঘুরে ২০০৭ সালে টানসেলিতে চলে আসেন তিনি।

২০০৭ থেকে ২০১৪ সাল পর্যন্ত টানসেলি স্টেট হসপিটালের জরুরি বিভাগে মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে কর্মরত ছিলেন তিনি।

২০১৪ সালে চাকরি থেকে ইস্তফা নিয়ে টানসেলির ওভাচিক জেলা থেকে কমিউনিস্ট পার্টির হয়ে মেয়র পদে জয় পান ম্যাকোগলু।

‘কমিউনিস্ট প্রেসিডেন্ট’ নামে পরিচিত এই নেতা জেলা জুড়ে মিউনিসিপ্যালিটির জমিতে ছোলা, শিম এবং আলু চাষের ব্যবস্থা করেন। সেখান থেকে আসা আয়ের পুরোটাই তিনি ভাগ করে দেন নিম্ন আয়ের পরিবার এবং শিক্ষার্থীদের বৃত্তিখাতে।

মজার বিষয় হলো, ম্যাকোগলুর এই চাষ প্রকল্প এতোটাই জনপ্রিয়তা পেয়েছিল যে, তুরস্কের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে স্বেচ্ছাসেবীরা ওভাচিকের শস্যক্ষেতে কাজ করতে আসত।

৩১ মার্চের নির্বাচনে তিনি আবারও কমিউনিস্ট পার্টির হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে টানসেলির মেয়র পদে বসতে যাচ্ছেন। ব্যক্তিগত জীবনে এই বামপন্থী নেতা দুই সন্তানের জনক।

সূত্রঃ ঢাকা ট্রিবিউন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published.

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker