খেলাধুলাবিনোদন

হঠাৎ সাকিবের ভাইরাল ছবি নিয়ে পক্ষে-বিপক্ষে মতামত

সাকিব আল হাসান, বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট

দলের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি অধিনায়ক। বর্তমানে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (আইপিএল) খেলতে ভারতে আছেন তিনি। উত্তেজনাপূর্ণ এই প্রতিযোগিতা সাবেক চ্যাম্পিয়ন হায়দারাবাদের হয়ে খেলছেন বিশ্বের অন্যতম সেরা এই

অলরাউন্ডার। আজ শুক্রবার ভাইরাল হয়েছে বিশ্বসেরা এই অলরাউন্ডারের একটি ছবি। ছবিতে দেখা যাচ্ছে, গাড়িতে বসে আছেন সাকিব। মুখে বড় দাড়ি। এটি ছিল একটা ক্লোজ শট সেলফি। এই ছবি দিয়ে সবাইকে ‘জুমা মুবারক’ জানিয়েছেন ক্রিকেট ক্রেজ সাকিব। সঙ্গে সঙ্গেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। যদিও ছবিটি আজ শেয়ার করেছেন সাকিব, তবে মোটামুটি

নিশ্চিত এটি সদ্য তোলা কোনো ছবি নয়। কেননা, সম্প্রতি আইপিএলে খেলার সময় তাকে যেভাবে দেখা গেছে, তাতে এত লম্বা দাড়িতে দেখা যায়নি বাংলাদেশের এই অধিনায়ককে। তবে ছবি যখনকারই হোক, এর নিচে পক্ষে-বিপক্ষে বিভিন্ন ধরনের মন্তব্য করছেন তার অনুসারীরা। এখানে মানুষের নানা প্রতিক্রিয়া তুলে ধরা হলো:- মোজাম্মেল বাচ্চু নামের

একজন লিখেছেন, আলহামদুলিল্লাহ। ভালো এবং সুন্দর দেখাচ্ছে। তবে এই কমেন্টে আসিফুল অভি লিখেছেন, হুজুগে খুশি হওয়ার আগে ছবিটা জুম করে দেখেন! এইটা লাগানো দাড়ি! বিঃদ্রঃ দাড়ির আঠাযুক্ত স্টিকার দেখা যাচ্ছে! আবু সাঈদ তুহিন লিখেছেন, মাশাআল্লাহ লেখার আগে ফটোটা জুম করে দেখুন…সাকিব এটা না করলেও পারতো। ইব্রাহিম খলিল দিপু

বলছেন, সাকিব ভাই, খুশি হলাম আপনার এমন পরিবর্তন দেখে। কিন্তু ভাবীকেও কি আপনার মত ইসলামি নিয়ম কানুনের ভেতর নিয়ে আসা যায় না? মো. শাহজালাল মিয়ার মন্তব্য, ভাই, আফনেরে দেখি পুরাই জঙ্গীদের মত লাগতেছে। মহিউদ্দিন হাওলাদার বলছেন, দাড়ি নিয়ে তামাশা করার কারণ কি? এটা নবীর সুন্নত, তামাশা করবেন না। মেহেদি ইএনএফ’র মন্তব্য, ভাই এই ফেক দাড়ি লাগিয়ে ছবি দেওয়ার কি দরকার ছিল???? শুধু শুধু নিজের মানসম্মানটুকু ডুবাইলেন। ছিঃ।

ফয়সাল আহমেদ লিখেছেন, ফেক দাড়ি। মনে হচ্ছে স্টিকার দিয়ে লাগানো? ইঞ্জিনিয়ার খলিলুর তাকে ‘ভন্ড চাচা’ বলেছেন। শাহাদাত হোসাইন লিখেছেন, সাকিব ভাই ফেইক দাড়ি চাইলে ইডিট করে রিয়াল দেখাতে পারতেন কিন্তু তা তিনি করেন নাই, দাড়ির বর্ডার দেখে আঠা দিয়ে লাগানো বুঝাই যাচ্ছে ফেইক দাড়ি। তিনি বুঝার জন্যেই দিছেন।

আমরা যারা দাড়ি নিয়ে মশকরা করছে বলে প্রাথমিক দৃষ্টিতে গালি দিচ্ছি কিন্তু বাস্তবে এর উদ্দেশ্য অনেক গভীর। যারা বুঝার তারা বুঝে নিবে। আমি যতদূর মনে করি সম্প্রতি আন্তর্জাতিক মিডিয়াতে দাড়ি নিয়ে যে আজেবাজে মন্তব্য কাদা ছুড়াছুড়ি হচ্ছে একজন মুসলিম হিসেবে এটা হয়তো উনার নীরব প্রতিবাদ। তাই ঠুস করে নেগেটিভ মন্তব্য না করাই উত্তম।

আলোড়ন বিশ্বাস লিখেছেন, প্রথমত এটা ফেক দাড়ি কারণ 3 দিন আগের খেলাতেও আপনার দাড়ি ছিলো না, ছবিটা জুম করলেই ফেক দাড়ি দেখা যায় …আর এই দাড়ি তে আপনাকে জঘন্য লাগছে আপনার জীবনের সব থেকে জঘন্য ছবি… মাজেদ আল হাসান লিখেছেন, বিবিসির নিউজের প্রতিবাদে উনি ছবিটা দিয়েছেন বলে আশা রাখি। একজন মুসলিম হিসাবে আমাদের প্রত্যেকে ইসলাম বিরোধি কর্মকাণ্ডের প্রতিবাদ করা ইমানদারির পরিচায়ক।

*** দ্বীনের পথে ফিরে আসা অনেক কঠিন। জন্মসূত্রে ইসলাম পাওয়া আমার মতো ব্যক্তি তা কখনো বুঝবে না। একজন নবমুসলিম বা ধর্মহীনতার পথ থেকে দ্বীনের পথে ফিরে আসা ব্যক্তিকে জিজ্ঞেস করুন; দ্বীনের পথে ফিরে আসতে তার কত পরিশ্রম করতে হয়েছে। কত ক্লান্তি ও কথার তীর বিঁধেছে বুকে। আসুন ভাই নেগেটিভ চিন্তা বাদদিন।

ভাল ধারণা রাখুন। মুমিনের উপর ভাল ধারণা রাখা রাসূলুল্লাহ সা. এর নির্দেশ। ছবিটা হয়ত আগের। তিনি এখন দিয়েছেন। এটা নিয়ে আপনারা যা শুরু করছেন। আল্লাহ না করুক এর প্রতিক্রিয়া খারাপ কিছু হলে আপনার মজাক করা কমেন্টের জন্য আপনি দায়ী থাকবেন।

একজন মুমিনের ইমান দুনিয়ার সবকিছু থেকে উত্তম স্মরণ রাখবেন। আমাদের সবাইকে প্রকৃত ইসলাম বুঝে মানার তাওফিক দান কর আল্লাহ্‌। বিডি প্রতিদিন/কালাম

সুত্র: Breaking 24 News

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button

Blocker Detected

Please Remove your browser ads blocker